আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে সন্তান নিয়ে পালিয়ে যাওয়ায় আমেরিকায় জাপানি মা অভিযুক্ত
টোকিও-এইদেশ, রবিবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৩


আমেরিকার কিরকল্যান্ডের অধিবাসী এক জাপানি মহিলা আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে তার সন্তানকে নিয়ে জাপানে পালিয়ে আসায় তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা হয়েছে।

কিং কাউন্টির সরকারি আইনজীবীরা জানান, চোই কাওয়াবাতা এ বছরের গোড়াতে তার ৫ বছর বয়সী পূত্র ম্যাক্সিমাসকে নিয়ে আমেরিকা ছেড়ে চলে যান। যদিও আদালতের নির্দেশ ছিলো শিশুটিকে আমেরিকার বাইরে নেয়া যাবেনা। কাওয়াবাতার বিরুদ্ধে অভিভাবকত্বে হস্তক্ষেপ, অপহরণ সংক্রান্ত গুরুতর অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে।

ডেপুটি প্রসিকিউটর বেনজোমিন স্যানটোস বলেন, কাওয়াবাতা তার সন্তানের পিতা ক্রিস মোরনেস এর সাথে সব রকম যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছেন এবং সন্তানকে ফিরিয়ে দেয়ার কোনো অভিপ্রায় তার মধ্যে নেই।

"বিবাদী অভিভাবকত্বের শর্ত ভঙ্গ করেছেন এবং আদালতের সর্বশেষ নির্দেশকে উপেক্ষা করেছেন" স্যানটোস আদালতে বলেন। "অবস্থা দেখে এটাই প্রতীয়মান হচ্ছে যে কাওয়াবাতা চুড়ান্ত ভাবে তার তল্পিতল্পা নিয়ে জাপানে সটকে পড়েছেন, তিনি ফিরে আসবেন এমনটা বিশ্বাস করার কোনো কারণ নেই।"

স্যানটোস মনে করেন ম্যাক্সিমাস ঝুঁকির মুখে থাকতে পারে।

সাম্প্রতিক বছর গুলোতে কিং কাউন্টিতে কাওয়াবাতা (৪৬) হলেন চতুর্থ জাপানি মা যার বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে সন্তানকে নিয়ে জাপান পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। জাপান যেহেতু আন্তর্জাতিক অভিভাবকত্বের চুক্তিতে সাক্ষর করেনি তাই শিশুদেরকে নিয়ে জাপানে পালিয়ে গেলে তাদেরকে ফিরিয়ে আনা এক রকম অসম্ভব হয়ে ওঠে।

কাওয়াবাতা এবং মোরনেসের মধ্যে ২০১২ সালে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। ম্যাক্সিমাস স্থায়ী ভাবে কাওয়াবাতার কাছে রয়ে যায়। আদালতের নির্দেশে বলা হয়, উভয় অভিভাবকের ক্ষেত্রেই ম্যাক্সিমাসকে নিয়ে দেশের বাইরে গেলে আদালতের পূর্বানুমতি নিতে হবে।

২০১২ সালে কাওয়াবাতা তার সন্তানকে জাপান নিয়ে যাওয়ার অনুমতি চান। জানুয়ারিতে কিং কাউন্টি উচ্চ আদালতের বিচারক জিন রিয়েশ্চেল তার আবেদন নাচক করে দেন।

মোরনেস জানতে পারেন কাওয়াবাতা জুলাইয়ের শেষে নিরুদ্দেশ হয়ে গেছেন এবং সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও তার সন্তানকে নিয়ে মোরনেসের নিকট উপস্থিত হননি। মোরনেসের অনুরোধে কিরকল্যান্ড পুলিশ জাপানি মহিলার বাড়িতে গিয়ে জানতে পারেন তিনি বাড়ি ছেড়ে দিয়েছেন।

পরে তদন্তে দেখা যায়, কাওয়াবাতা জুলাইয়ের ২৬ তারিখ জাপান ছেড়ে চলে যান। যাওয়ার সময় তিনি এক পথের টিকেট কেনেন।

একটি ইমেইলে কাওয়াবাতা স্বীকার করেন যে তিনি তার সন্তানকে ওসাকা নিয়ে এসেছেন, কিরকল্যান্ডের এক গোয়েন্দা আদালতকে জানান।