ভালো না লাগার কবিতা
খুরশীদ আনোয়ার, শুক্রবার, মার্চ ০১, ২০১৩




খিল খিল করে হাসো
তোমার ভেতর এতো
বেশি বাতাস? বইতে জানো!
প্রতিটি প্রত্যঙ্গে
গোলাপ ফোটাও নাকি
ফুটেই থেকেছে,
তুমি ফুল
তুমিই ক্লেদ। যাবো?
দু’বাহু মেলেছো?
পাখি নাও
ইঙ্গিতে ইঙ্গিতে
কী বলছো
বুঝাতে পারি না
বা দিকের পাঁজর ডাকছে।
তুমি নাকি?
তুমিতো গান্ধারী কিংবা
কৈকেয়ীর মতো,
শকুন্তলা কিংবা মনেরোর মতো
ভাসাও না বাহু
সলোমন গালিচায়
উড়তে চাওনা
যে মুহূর্তে খিলখিল হাসো
বৈভব, ভৈরবী নেই
নিস্তব্ধতা নেই
জন্ম মৃত্যু নেই
মধ্যিখানে জীবন স্থবির
একটি বেলির
একটি পাপড়ি
খুলে জাগাচ্ছে আমাকে।
একটি শরীর
আমার হৃদয়, আমাদের
হৃদয় দু’টোকে
কেবল দোলাচ্ছে
শরীরটা প্রত্যাখান করে
হৃদয়কে। মনটা আকাশ
ছোঁয়।
খিলখিল হাসির ভেতর
পাথরে হৃদয় ফোটে
আঙুল হয় না
কলম, আকাশ
হয় না কালছে স্লেট
চক ভুল লেখে।
তোমার চুম্বনেও
পুরু বাতাসের কাঁথা
মোড়ানো। দু’ঠোঁটে
কিংবা চার ঠোঁটের হালকা
পরতে পরতে জমে আছে
ঢের ছাঁই, ভালো লাগছেনা।